Biography

নূরুল হোসেন খান

নূরুল হোসেন খান ১৮৯২ সাল সাগর দীঘির পশ্চিম পাড়ে জন্মগ্রহণ করেন৷ তাঁর বাবার নাম হেদায়েত উল্লা খান৷ বানিয়াচং বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন হেদায়েত উল্লা খান প্রাথমিক বিদ্যালয়টি তাঁর বাবার স্মৃতি করে আছে৷ নুরুল হোসেন খান ওকালতি পাশ করে হবিগঞ্জ ফৌজদারি কোর্টে আইন ব্যবসায় সুনাম অর্জন করেন৷ তত্‍সময়ে মুসলমানদের মধ্যে হবিগঞ্জে তিনিই প্রথম উকিল ছিলেন৷
ওকালতি পেশায় উন্নতির পাশাপাশি সামাজিক কর্মকাণ্ডে নূরুল হোসেন খান অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন৷ তিনি সরাসরি ভোটে লোকাল বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হয়ে প্রায় ৩০ বছর উক্ত পদে বহাল থেকে নানাবিধ উন্নয়নমূলক কাজে অংশগ্রহণ করেন৷ তিনি দীর্ঘদিন ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন৷
তিনি ১৯৪৫ সালে লোকাল বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন এবং দীর্ঘ প্রায় ৮ বছর দায়িত্ব পালন করেন৷ এই সময় তিনি গ্রামে গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন, হাই স্কুল প্রতিষ্ঠা এবং রাস্তাঘাটের উন্নয়ন সাধন করেন৷ তাঁরই প্রচেষ্টায় বানিয়াচং বালিকা বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়৷
১৯৪৬ সালে তিনি তদানীন্তন মুসলিম লীগের প্রাথর্ী হিসেবে আসাম সরকারের কেবিনেট মেম্বার নির্বাচিত হন৷ ভারত বিভক্তির পর ৫৪ সাল পর্যন্ত তিনি তত্‍কালীন পূর্ব পাকিস্তান সরকারের প্রাদেশিক মেম্বার ছিলেন৷ এই সময় তাঁকে সেন্ট্রাল জুট কমিটির মেম্বার ও বিজি উলেন্স টান্সপোর্ট অথরিটির মেম্বার নির্বাচন করা হয়৷
১৯৫২ সালে ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দোলনে নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আজাদ পত্রিকায় তিনি একটি বিবৃতি দেন৷ এই বিবৃতির জন্য তত্‍কালীন গভর্ণর নূরুল আমীন তাঁকে শাসিয়েছিলেন৷ প্রতি উত্তরে তিনিও কঠোর ভাষায় এর তীব্র নিন্দা জানান৷