Biography

এহিয়া খান চৌধুরী


এহিয়া খান চৌধুরী বানিয়াচং সুজাতপুর গ্রামে ১৯০১ সালে সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন৷ তিনি তত্‍কালীন সরকারের স্বনামধন্য জেলা প্রশাসক ও পরবতর্ীতে সচিব পদে উন্নীত হন৷ সরকারি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণের পর ১৯৬২ সালে তিনি এম এন এ নির্বাচিত হয়েছিলেন এবং দেশে সুখ্যাতি অর্জন করে ছিলেন৷ এহিয়া খান চৌধুরী করিমগঞ্জ বারোখান নামক স্থানে হাই স্কুল ও করিমগঞ্জে শহরে একটি কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন৷ ১৯৮৫ সালে এই কীর্তিমান পুরুষ মৃতু্যবরণ করেন৷ তাঁর সুযোগ্য পুত্রদ্বয় জনাব জাকারিয়া চৌধুরী একজন স্বনামধন্য রাজনীতিবিদ ও প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং শ্রম, জনশক্তি ও জনকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত মন্ত্রী ছিলেন৷ তাঁর সম্পাদনায় ষাটের দশকে লন্ডন থেকে এশিয়ান টাইড ও পূর্ব বাংলা নামে দুটি পত্রিকা প্রকাশিত হয়েছে দীর্ঘ দিন৷ এছাড়াও তিনি পূর্ব পাকিস্তানের বৈষম্য তুলে ধরে আনহ্যাপি ইষ্ট-পাকিস্তান শিরোনামে একটি তথ্য ও গবেষণামূলক পুস্তিকা বের করেন৷ জনাব খান পাকিস্তান আন্দোলন ভাষা আন্দোলন, আয়ুব বিরোধী আন্দোলন ও স্বাধীনতা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন৷ ভাষা আন্দোলনে তিনি কারাবরণও করেন৷ তাঁর সহধর্মিনী মিসেস শামীম সিকদার বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চারুকলা ইনষ্টিটিউটের একজন অধ্যাপিকা ও এশিয়ার একজন প্রখ্যাত ভাস্কর্য শিল্পী৷ তিনি বাংলা একাডেমী ২০০০ সালের একুশে পদক পেয়েছেন৷
তাঁর অন্য আরেক ভাই জাকির খান চৌধুরী তত্‍কালীন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী হিসাবে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন৷ তিনি মুক্তিযোদ্ধা সংসদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন৷ ১৯৭১ সালে তিনি ট্রেনিং ক্যাম্পের ডাইরেক্টর এর দায়িত্ব পালন করেন৷ ২০০১ সালে তিনি মৃতু্যবরণ করেন৷